সেলিব্রেটিস
নাসির হোসেন এর সংবাদগুলো

অন্যরকম নাসির
প্রথম আলো
২৮ জুন, ২০১৩
স্বপ্নের বীজ মনের জমিনে নাসির হোসেন বপন করেছিলেন খুব ছোটবেলাতেই। স্বপ্নটা ক্রিকেটার হওয়ার। খুব বড় ক্রিকেটার। বাইশ গজের চৌহদ্দির এই খেলাটি সেই ছোট্টবেলা থেকেই অসম্ভব ভালো লাগে তাঁর। ১৬ বছর আগে উত্তরবঙ্গের এক জেলা শহরে বসে সাক্ষী হলেন ইতিহাসের। বাংলাদেশ আইসিসি ট্রফি জিতে ঢুকে গেল বিশ্বকাপের আঙ্গিনায়। বাড়িতে বসে বেতারে বাংলাদেশের খেলাগুলো শুনতেন আর ভাবতেন, ইশ, কোনো দিন যদি ইথারে এমনি করে ভেসে আসত তাঁর নিজের কোনো কীর্তি! আইসিসি ট্রফি জয়ের পর উত্সবে উন্মাতাল হলেন নাসিরও। পাড়ার ছেলেদের নিয়ে ...
(মূল লেখা)
নাসিরনামা
প্রথম আলো
১০ মে, ২০১৩
৬৮, ৩৬, ৬৩। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাত্রই শেষ হওয়া ওয়ানডে সিরিজে নাসির হোসেনের রান। ৩ ম্যাচে ৫৫.৬৬ গড়ে ১৬৭ রান— ‘ধারাবাহিক’ নাসির ছোটখাটো একটা রেকর্ডও করে ফেলেছেন। টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলোর বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি রান করা ব্যাটসম্যান এখন নাসিরই। নাসির পেছনে ফেলেছেন হাবিবুল বাশার ও তামিম ইকবালকে। ২০০৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হাবিবুল ও ২০১০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তামিম করেছিলেন ১৫৫ রান করে। তিন ম্যাচের সিরিজে যেকোনো দেশের বিপক্ষে বাংলাদেশের রেকর্ডটা শাহরিয়ার নাফীসের। ...
(মূল লেখা)
একজন নাসির হোসেন
প্রথম আলো
০৫ ডিসেম্বর, ২০১১
রাতের ঘুম খুব ভালো হয়েছে। তবে যেভাবে একটার পর একটা ফোন আসছিল, ঘুমানো কঠিনই ছিল। ফোনটা সাইলেন্ট করে ঘুমিয়েছিলেন বলে রক্ষা। প্রথম সেঞ্চুরির রাতটা আরামেই কাটল নাসির হোসেনের। বন্ধুরা অভিনন্দন জানাতে ফোন করছিল। রংপুর থেকে মা-বাবা ফোন করে আবেগে ভেসে গেলেন। স্বপ্ন ছিল, ছেলে ক্রিকেটার হবে, ছেলের খেলা টেলিভিশনে দেখবেন। সবই সত্যি হয়ে যাওয়ার পর আদরের সেই ছোট ছেলে সেঞ্চুরিও করে ফেলল। আবেগে ভাসার রাতই তো ছিল এটি! রংপুর শহরের দেওয়ানবাড়ী এলাকায় নাসিরদের বাসা। পরশু এলাকার অনেক মানুষ এ ...
(মূল লেখা)
এখন সবচেয়ে বড় ভরসার নাম নাসির
কালের কন্ঠ
৮ মে, ২০১৩
ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই হয়েছে তুলনাটা। ডিয়েগো ম্যারাডোনার সঙ্গে লিওনেল মেসির। ক্লাব ফুটবলের সাফল্য দিয়ে বিখ্যাত পূর্বসূরিকে এরই মধ্যে ছাপিয়ে গেছেন উত্তরসূরি। এবার গোলসংখ্যায়ও ছাপিয়ে যাওয়ার পথে। ২১ বছরের ক্যারিয়ারে সাকুল্যে ৩৪৫ গোল করেছিলেন ম্যারাডোনা। ক্লাবের হয়ে ৩১১ এবং জাতীয় দলের জার্সি গায়ে ৩৪টি। দিন দুয়েক আগে রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে জোড়া গোল করে সিংহাসনে সম্রাটের সঙ্গী হলেন মেসি। বার্সেলোনার হয়ে ৩১৩ এবং আর্জেন্টিনার হয়ে ৩২ গোলে এখন তাঁর ক্যারিয়ার গোলসংখ্যা ৩৪৫। পার্থক্য বলতে, এ জন্য ম্যারাডেনার চেয়ে মাত্র (!) ২২৩ ম্যাচ কম খেলতে হয়েছে মেসিকে। আর তাঁর বয়স এখন মোটে ২৫ বছর এবং ক্যারিয়ারে যতটা সময় মাঠে কাটিয়েছেন অন্তত আরো ততটুকু সময় খেলা চালিয়ে যাওয়ার কথা। ম্যারাডোনাকে ছাড়িয়ে কত দূরে গিয়ে যে থামবেন এই জিনিয়াস! ...
(মূল লেখা)
আইসিসির বর্ষসেরা তালিকায় সাকিব-নাসির-সানি
দৈনিক আজাদী
১৪ আগস্ট, ২০১২
আইসিসি ২০১২ সালের পুরস্কারের তিন বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছেন তিন বাংলাদেশী ক্রিকেটার। সম্প্রতি টেস্ট ক্রিকেটে অলরাউন্ডারের শীর্ষস্থান হারানো সাকিব আল হাসান জায়গা করে নিয়েছেন একদিনের ক্রিকেটের বর্ষসেরা তালিকায়। অল রাউন্ডার নাসির হোসেনকে সেরা উদিয়মান ক্রিকেটার হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছে জুরি বোর্ড। আয়ারল্যান্ড সফরে টি-২০ অভিষেকে ৫ উইকেট দখল করা ইলিয়াস সানিকে বিবেচনায় রাখা হয়েছে টি-২০ এর ক্রিকেটের বর্ষসেরা নৈপুণ্যের ছোট তালিকায়। ১৫ সেপ্টেম্বর কলম্বোতে নবম আইসিসি পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। ক্রিকেটের সর্বোস্ত স্বীকৃতিতে অবশ্য এগিয়ে রয়েছেন ছয় ক্রিকেটার। যারা ৪ আগস্ট ২০১১ থেকে ৬ আগস্ট ২০১২ পর্যন্ত পারফরমেন্স দিয়ে তিন ক্যাটাগরিতে স্থান করে নিয়েছেন। সবচেয়ে আলোচিত আইসিসি বর্ষসেরা ক্রিকেটারের সঙ্গে টেস্ট ও ওডিআই তালিকায় স্থান পাওয়া পাঁচ পুরুষ ক্রিকেটার হলেন পাকিস্তানের সাঈদ আজমল, দক্ষিণ আফ্রিকার হাশিম আমলা, অসি অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক, লংকান কুমার সাঙ্গাকারা ও ইংলিশ ক্রিকেটার অ্যালিস্টার কুক। ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্টেফানি টেলরই একমাত্র মহিলা যে আইসিসি বর্ষসেরা ক্রিকেটারের মনোনয়নের সঙ্গে রয়েছেন মহিলাদের ওডিআই ও টি২০ বর্ষসেরার তালিকায়। ...
(মূল লেখা)
নাসির হোসেন বড় হওয়ার গল্প
প্রথম আলো
২৫ এপ্রিল, ২০১৩
শাহীন-শামীম দুই ভাই। তারা রোজ ক্রিকেট প্র্যাকটিস করতে যেত। প্র্যাকটিস করাতেন কোচ শাকিল রায়হান। কিন্তু কোচের চোখ শাহীন-শামীমের ওপর ছিল না। তিনি খুঁজে বেড়াতেন ছোট্ট একটা ছেলেকে...। কিংবা গল্পের শুরু হতে পারে এভাবেও— শাকিল রায়হান কি হীরা চিনতেন? হীরা পরখ করার জন্য ভদ্রলোকের কোনো আতশি কাচ ছিল না। তার পরও এক যুগ আগে সাদা চোখে ঠিকই চিনে নিয়েছিলেন একটা হীরা। সেই হীরা আজ দীপ্তি ছড়াচ্ছে। শুরু যেভাবেই হোক, গল্পের সেই ছোট্ট ছেলেটি কিংবা আজকের আলো ছড়ানো ‘হীরা’, গল্পের নায়ক, ...
(মূল লেখা)
পুরাই ঘোরাঘুরির মধ্যে ছিলাম
প্রথম আলো
১৩ জুন, ২০১৩
জিম্বাবুয়ে সফর থেকে ফিরে পুরো এক মাসের ছুটি। প্রায় পুরো ছুটিটাই কাটিয়েছেন রংপুরে পরিবার ও বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে। ছুটি শেষে অন্যদের মতো নাসির হোসেনও আজ যোগ দেবেন কন্ডিশনিং ক্যাম্পে। তবে জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার প্র্যাকটিসের চেয়ে ম্যাচ খেলাটাকেই গুরুত্ব দিতে চান বেশি। ক্যাম্প ছাপিয়ে তাঁর চোখ তাই প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে  লম্বা ছুটি পেলেন। কীভাবে কাটালেন সময়টা? নাসির হোসেন: রংপুর চষে বেড়িয়েছি। অন্য কোথাও যাইনি। বন্ধুর পুকুরে ছিপ দিয়ে মাছ ধরেছি, বাইক চালিয়েছি, গাড়ি নিয়ে ঘুরেছি। পুরাই ঘোরাঘুরির মধ্যে ছিলাম। ...
(মূল লেখা)
আমার বাসার সবাই-ই তো কোচ!
কালের কন্ঠ
১২মে, ২০১৩
আইফোনে আলতো চাপ দিলেই ভেসে ওঠে। দেখে গড় গড় করে নিজের টেস্ট, ওয়ানডে ও টোয়েন্টি টোয়েন্টির ব্যাটিং গড় বলে দিতে পারেন নাসির হোসেন। দলের বিপর্যয়ের সময়েও যাঁর ব্যাটিংয়ে চাপের ছায়া দেখা যায় না, সেই তিনিও নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে তাহলে ভাবেন! নইলে নিজের ক্যারিয়ার কেন 'হোম পেইজ' বানিয়ে রাখবেন নাসির? খেলোয়াড় নাসিরের এটা দ্বিতীয় বৈপরীত্য। তাঁর দাবি ক্যারিয়ার নিয়ে একবিন্দু ভাবেন না। কিন্তু চোখ বুলান নিয়ম করে! প্রথম বৈপরীত্যটা জেনে নেওয়া যাক। ২০১১ সালে নাসির হোসেনকে জিম্বাবুয়েতে পাঠানো হয়েছিল আন্তর্জাতিক ...
(মূল লেখা)
নাসির-রিয়াদের ঝলকানির পরও...
ইত্তেফাক
৯ মে, ২০১৩
অভিষেকের পর থেকে খেলতেন আট নম্বরে। জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটো ফিফটি করার পুরস্কার হিসেবে পাকিস্তানের বিপক্ষে ছয় নম্বরে প্রমোশন মিলেছিল। সুযোগ পেয়েই সেঞ্চুরি করে ফেললেন। সেঞ্চুরি করে মুখভর্তি স্বভাবসুলভ হাসি নিয়ে এসেছিলেন সংবাদ সম্মেলনে। কিন্তু হাসিটা মিলিয়ে গেল একটা প্রশ্ন শুনে—সেঞ্চুরি করে ব্যাট তুললেন না কেন? প্রশ্নটা শুনে মুখ কালো করে একটুও ইতস্তত না করে বলে ফেললেন, 'ব্যাট তুলে কী হবে! ম্যাচই তো জিততে পারলাম না। হারা ম্যাচে এই সেঞ্চুরির কোনো দাম নেই।' সেই সেঞ্চুরির পর আরও ...
(মূল লেখা)
ধারাবাহিকতার মূর্ত প্রতীক নাসির হোসেন
জনকন্ঠ
৩০ মার্চ, ২০১৩
মাহমুদুন্নবী চঞ্চল ॥ শুরুর দিকে সবাই চিনত দাঁত ভাঙ্গা নাসির বলে। নিজের নয়, ভেঙ্গেছিলেন প্রতিপক্ষের দাঁত। ২০১১ সালে জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে সেই আলোচিত দাঁত ভাঙ্গা দিয়েই শুরু পথ চলা। পঞ্চম ও শেষ ওযানডে ম্যাচে জিম্বাবুইয়ান পেসার কিগান মেথের বল স্ট্রেট ড্রাইভ করতে গিয়ে সরাসরি মুখেই লেগেছিল ঐ বোলারের। তৎক্ষণাৎ দুটি দাঁত পড়ে গিয়েছিল মেথের। রক্তাক্ত মুখে লুটিয়ে পড়েছিল মেথ। কিছুটা হতবিহ্বল ছিলেন নাসিরও। এরপর থেকেই শুরু। দাঁত না পড়লেও বাংলাদেশের হয়ে প্রায় প্রতি ম্যাচেই প্রতিপক্ষের দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিয়ে আসছেন আলোচিত এই অলরাউন্ডার। ইতোমধ্যে ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন ২২টি। তাতেই মিডল অর্ডারে হয়ে উঠছেন নির্ভরতার কেন্দ্রবিন্দু। সবচেয়ে বড় কথা, বাংলাদেশ দলে যেটির বড়ই অভাব, সেই ধারাবাহিকতার মূর্ত প্রতীক এখন নাসির হোসেনই। জিম্বাবুইয়ে থেকে বর্তমানে শ্রীলঙ্কা সফর; সাফল্যে মোড়ানো নাসির হোসেনের ক্যারিয়ার। সর্বশেষ শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তৃতীয় ওয়ানডেতে তার করা ২৭ বলে ৩৩ রানের তুঙ্গস্পর্শী আর হৃদয় কাঁপানো ইনিংস বাংলাদেশকে এনে দিয়েছে অনন্য এক গৌরবময় জয় গাথা। বৃষ্টি বিঘিœত ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ...
(মূল লেখা)

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত অনলাইন ঢাকা গাইড -২০১৩